ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৬ জুন ২০২২ ১১ আষাঢ় ১৪২৯
ই-পেপার রোববার ২৬ জুন ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

গোস্সা কমেনি ২০ দলের
সাব্বির আহমেদ
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২, ১২:০১ পিএম আপডেট: ২৪.০৫.২০২২ ১২:০৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 88

দীর্ঘদিন ধরে নিষ্ক্রিয় আছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। বিএনপির সঙ্গে তাদের দূরত্ব কমছে না। বিএনপি এবার শরিকদের কদর না করলে নির্বাচনে তারা জোট ত্যাগের চিন্তাও করছে। কেউ কেউ নির্বাচন কমিশনের (ইসি) আসন্ন সংলাপেও অংশ নিতে রাজি আছেন। তাদের যুক্তি- বিএনপি কী করছে তা জোটকে জানাচ্ছে না। এমনকি কোনো সলাপরামর্শও করছে না। সম্পূর্ণ একলা চলো নীতিতে চলছে বিএনপি। এভাবে চলতে থাকলে জোটে বড় ভাঙনের শঙ্কা রয়েছে।

২০ দলীয় জোটের শরিক কয়েকটি দলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরই জোট অনেকটা নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ে। জোটকে বাদ দিয়ে ‘একলা চলো নীতিতে’ হাঁটতে থাকে বিএনপি। শরিকরাও যার যার মতো করে চলতে থাকে। ফলে দিন দিন বাড়ে দূরত্ব। ২০২০ সালের ৫ জুলাই সবশেষ জোটের বৈঠক হয়। করোনার কারণে ওই বৈঠকটি হয়েছিল ভার্চুয়ালি। জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আবদুল হালিম সময়ের আলোকে বলেন, জামায়াতের প্রয়োজনীয়তা ফুরিয়ে যায়নি। জোটের আনুষ্ঠানিক বৈঠক না হলেও বিএনপির সঙ্গে তাদের আলোচনা চলছে। জোট থেকে জামায়াতকে বাদ দেওয়ার কথা উঠলেও জোটপ্রধান খালেদা জিয়া এখন পর্যন্ত কোনো ঘোষণা দেননি। তার নেতৃত্বেই আমরা জোটে আছি। প্রয়োজন ও পরিস্থিতি বিবেচনায় জামায়াত সিদ্ধান্ত নেবে। 

লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, বিএনপি নির্বাচনকেন্দ্রিক যে নতুন ফরম্যাট তৈরি করছে তা জোটের শরিকরা নাও মানতে পারে। সিদ্ধান্ত অংশগ্রহণমূলক না হলে মানতে চাইবে না কেউ। আর বিএনপি জোট নিয়ে না ভেবে আগের মতো ফ্রন্ট নিয়ে ভাবছে। এটা শরিকদের জন্য মন খারাপের। পরিস্থিতি বুঝে আমরা সিদ্ধান্ত নেব। 

জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপার সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান বলেন, আমরা এখনও জোটের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি। অনেকদিন ধরে কোনো বৈঠক না হওয়ায় নিঃসন্দেহে বিএনপির সঙ্গে ফারাক তৈরি হয়েছে। জোট যদি সম্মিলিত সিদ্ধান্ত না নিতে পারে তা হলে আমাদের দল সিদ্ধান্ত নেবে। জোটে এখনও আছি। বিএনপির আচরণ ও পরিস্থিতি বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেব। আর নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে যাওয়ার বিষয়ে তারা দলগত সিদ্ধান্ত নেবেন। বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বলেন, এখনও সব বিষয়ে মন্তব্য করার সময় আসেনি। নির্বাচন এখনও অনেক বাকি। শরীর সুস্থ হলে আগামী মাসে আলোচনা করব।

এদিকে জোটে যথাযথ মূল্যায়ন না করার কারণেই ক্ষুব্ধ লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি-এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদ। তিনি সময়ের আলোকে বলেন, বিএনপি কী করল বা না করল এটা তাদের নিজস্ব বিষয়। প্রয়োজন অনুয়ায়ী আমরা আমাদের সিদ্ধান্ত নিচ্ছি। এই সরকারের অধীনে ভোটে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত আমাদের। জোটের বৈঠক না হওয়ার বিষয়ে বিএনপিই ভালো বলতে পারবে। সরকারবিরোধী আন্দোলন জোটগতভাবে না হয়ে যুগপৎ হতে পারে। যার যার অবস্থান থেকে তারা রাজপথে থাকবে।

জানা গেছে, জোটের শরিকদের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিকভাবে বৈঠক করেছেন বিএনপির নীতিনির্ধারকরা। কয়েকদিন পর ডাকা হতে পারে ২০ দলীয় জোটের বৈঠক। তবে শরিকদের সঙ্গে আলাদাভাবে মতবিনিময় করবে বিএনপি। তারা যুগপৎ আন্দোলনের চিন্তা করছেন। জানতে চাইলে ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, ২০ দলীয় জোটে কোনো বিভেদ বা অনৈক্য নেই। জোটের ঐক্য কীভাবে আরও সুদৃঢ় করা যায়, তা নিয়ে কাজ করছি। আশা করি শিগগির জোটের বৈঠক ডাকা হবে।

/জেডও

http://www.shomoyeralo.com/ad/Local-Portal_Send-Money_728-X-90.gif

আরও সংবাদ   বিষয়:  বিএনপি  




http://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]