ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ ৩ মাঘ ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

কোলাহল নেই বাসার সামনে
ডা. মুরাদ কোথায়?
সাইফুল ইসলাম
প্রকাশ: বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 188

মঙ্গলবার দুপুর ১২টা। ধানমন্ডির ১৫ নম্বর রোডের ৩০/এ নম্বর বাসা। সদ্যপদত্যাগী তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের বাসা এটি। দু-তিন দিন আগেও এ বাসার সামনে ছিল দলীয় নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের কোলাহল। বাসার সামনে উড়ত জাতীয় পতাকা। কিন্তু গত দুদিন ধরে এখানে মানুষের উপস্থিতি খুবই কম। মঙ্গলবার হাতেগোনা দু-চারজনকে পায়চারি করতে দেখা গেছে বাসার সামনে। 

বেশ কিছুদিন ধরে বিভিন্ন বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে সমালোচনার মুখে ছিলেন প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। সবশেষ ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকা মাহিয়া মাহিকে নিয়ে প্রতিমন্ত্রীর অশ্লীল ভাষার একটি অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হওয়ায় বিভিন্ন মহল থেকে এর প্রতিবাদের পাশাপাশি দাবি ওঠে তার পদত্যাগের। এমনকি তার নিজ দল আওয়ামী লীগের বহু নেতাকর্মীও সোচ্চার হন ডা. মুরাদের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী সোমবার তাকে পদত্যাগের নির্দেশ দিলে মঙ্গলবার পদত্যাগ করেন তিনি। পদত্যাগের কিছু সময় পরই দুপুর ১২টায় তার বাসা থেকে জাতীয় পতাকা সরিয়ে নেওয়া হয়।

বাসার নিরাপত্তাকর্মী সুমন সময়ের আলোকে বলেন, ভবনের তৃতীয় তলায় পরিবারসহ থাকেন প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান স্যার। দ্বিতীয় তলায় তার অফিস। এখানে বসেই দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করতেন তিনি। প্রতিদিন এখানে মানুষের ভিড় লেগেই থাকত। সকাল থেকে মানুষের আসা শুরু হতো। অনেক রাত পর্যন্ত থাকত মানুষের উপস্থিতি। কিন্তু আজ (মঙ্গলবার) সকাল থেকে এখানে কোনো জনসমাগম নেই। গত দুদিন ধরে বাসার সামনে মানুষের উপস্থিতি কম দেখা যাচ্ছে। তবে এর কারণ জানা নেই তার। এই নিরাপত্তাকর্মী জানান, স্যার রোববার রাতে বাসায় আসেন। পরদিন সোমবার বেলা ১১টার দিকে আবার বেরিয়ে যান। এরপর আর বাসায় ফেরেননি। ম্যাডামও আজ (মঙ্গলবার) সকালে বাসা থেকে বেরিয়ে গেছেন। এর মধ্যে দুপুর ১২টার দিকে স্যারের গানম্যান এসে বাসার সামনে থাকা জাতীয় পতাকা নামিয়ে ফেলতে বলেন। তখন পতাকাও নামিয়ে ফেলা হয়।

সরেজমিন দেখা গেছে, বাসার সামনে কয়েকটি গাড়ি পার্ক করে রাখা। নিচে নিরাপত্তাকর্মীরা বসে আড্ডা দিচ্ছেন। প্রতিমন্ত্রী হিসেবে তার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্য রেজাউল ও আনসার সদস্য আবদুল ছালেক বসে আছেন। মুরাদের পার্টি অফিসে তালা ঝুলছে। স্থানীয়রা কয়েকজন বলাবলি করছিলেন, তাকে ভালো মানুষ হিসেবে জানলেও এমন খারাপ বিষয়টি জানতেন না তারা।

মুরাদের বাড়ির নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্য রেজাউল সময়ের আলোকে বলেন, সোমবার সকালে বাসা থেকে বের হওয়ার পর এক দিন পেরিয়ে গেলেও স্যার এখনও বাসায় ফেরেননি। শুনেছি, স্যার প্রতিমন্ত্রী থেকে পদত্যাগ করেছেন। তার গানম্যান এসে বাসার সামনে থেকে পতাকা নামাতে বললে আমরা দুপুর ১২টার দিকে পতাকা নামিয়ে ফেলি। তিনি আরও বলেন, আগে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ এখানে আসত; কিন্তু সোম ও মঙ্গলবার এই দুদিন সাংবাদিক ছাড়া কাউকে দেখা যায়নি। তিনি কোথায় আছেন আমরা জানি না। নির্দেশ এলে আমরাও চলে যাব।

পদত্যাগ করা তথ্য প্রতিমন্ত্রীর জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সময়ের আলোকে জানান, ডা. মুরাদ হাসান মঙ্গলবার ভোরে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় এসেছেন। তিনি বাসায় আছেন কি না- এ প্রশ্নের জবাবে জনসংযোগ কর্মকর্তা বলেন, ঢাকায় আছেন, তবে কোন বাসায় রয়েছেন তা জানি না। রাত সাড়ে ৮টায় তার বাসার নিরাপত্তাকর্মী সুমন আরও জানান, এখনও বাসায় ফেরেননি স্যার। ফিরবেন কি না জানি না।

/জেডও/


আরও সংবাদ   বিষয়:  ডা. মুরাদ   তথ্য প্রতিমন্ত্রী   মাহিয়া মাহি   নায়ক ইমন   জাইমা  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]