ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯
ই-পেপার  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

রাজারবাগ পীরের কর্মকাণ্ডে সিটিটিসির নজরদারি শুরু
আলমগীর হোসেন
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 403

আলোচিত-সমালোচিত ‘রাজারবাগ পীরের’ কর্মকাণ্ডের ওপর নজরদারি শুরু করেছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। হাইকোর্টের নির্দেশনার ‘অফিসিয়াল’ কপি হাতে না পৌঁছলেও এরই মধ্যে গোয়েন্দা তৎপরতা শুরু করা হয়েছে বলে জানা গেছে। 

এদিকে হাইকোর্টের নির্দেশনার খবর জানাজানি হলে রাজারবাগ পীরের (দিল্লুর রহমান) মুরিদ বা অনুসারীরাও কৌশল অবলম্বন করে তৎপরতা চালাচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। শুধু রাজারবাগ পীর নন, ধর্মকে ব্যবহার করে মনগড়া ও উসকানিমূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাওয়া এমন আরও একাধিক পীর, বক্তা বা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধেও নজরদারি করা হবে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মো. আসাদুজ্জামান সময়ের আলোকে সোমবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘আমরা মৌখিকভাবে নির্দেশনা পেয়েছি। এখনও কোনো নথি বা কাগজ হাতে পাইনি। এরই মধ্যে রাজারবাগ পীরের সব কর্মকাণ্ড নজরদারিতে রেখেছি। উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা আমাদের তদন্তকাজ করে যাচ্ছি। যেখানে যেমন প্রয়োজন তেমন ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এদিকে সোমবার সন্ধ্যায় মোবাইল ফোনে এ বিষয়ে কথা হয় শাহ আলম নামে রাজারবাগ পীরের এক অনুসারী বা মুরিদের সঙ্গে। তিনি মাদারটেক এলাকার অটোরিকশা চালক। শাহ আলম সময়ের আলোকে বলেন, ‘আমি উনার (রাজারবাগ পীর) নতুন মুরিদ হয়েছি। তা পাঁচ-সাত বছর হবে। আমি তো পীরের কাছ থেকে নামাজ-কালামের কথাই শুনি। এর বাইরে কিছু জানি না। তা ছাড়া আমি নিয়মিত দরবারে যাই না। জুমার দিনে গেলেও বয়ান শুনে চলে আসি।’ কোন আদর্শ বা ভালো লাগা থেকে রাজারবাগ পীরের মুরিদ হলেন- এমন প্রশ্নের জবাবে শাহ আলম বলেন, ‘এসব কথা সাক্ষাতে ছাড়া বলা যাবে না।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শাহ আলমের মতো এমন আরও অনেকেই রাজারবাগ পীরের অনুসারী। রাজারবাগ পীর ও তার মুরিদদের বিরুদ্ধে দখল, হামলা, হয়রানিসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। বিশেষ করে মুরিদদের দিয়ে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে টার্গেট করা ব্যক্তিদের হয়রানির অভিযোগ বেশি আলোচিত। এমন বিভিন্ন কর্মকাণ্ড নিয়ে ব্যাপক অভিযোগ ও বিতর্ক সৃষ্টি হলেও তারা মোটামুটি দৃঢ়তার সঙ্গেই কথা বলে যাচ্ছিলেন। তবে রোববার হাইকোর্ট থেকে রাজারবাগ পীর ও তার মুরিদ বা অনুসারীদের কর্মকাণ্ডের বিষয়ে ডিএমপির বিশেষায়িত কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে নির্দেশ দেওয়ার পর ব্যাপক প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে ওই পীর সংশ্লিষ্টদের মধ্যে। যদিও এ বিষয়ে রাজারবাগ পীরের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

হাইকোর্টে জমা দেওয়া সিটিটিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজারবাগের পীর ও তার সহযোগীরা কোরআন এবং হাদিসের খণ্ডিত ব্যাখ্যা দিয়ে দেশের ধর্মভীরু মানুষকে ভুল পথে পরিচালনা করছেন। ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে মানুষ হত্যা ও তথাকথিত জিহাদকে উসকে দিচ্ছেন। তাদের (রাজারবাগ পীরভক্ত) কার্যক্রমে উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। 

এর আগে রাজারবাগ সিন্ডিকেটের করা ৪৯ মামলার বাদীদের খুঁজতে ব্যবসায়ী একরামুল আহসান কাঞ্চনের এবং অপর আটজনের করা পৃথক দুটি রিটে দেওয়া আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিবেদন জমা দেয় সিটিটিসি ইউনিট। সেই প্রতিবেদনের প্রেক্ষাপটে হাইকোর্ট সিটিটিসি ইউনিটকে রাজারবাগ পীর ও তার অনুসারীদের কর্মকাণ্ডের ওপর নজরদারির নির্দেশ দেন।

/জেডও/






আরও সংবাদ   বিষয়:  রাজারবাগ পীর   সিটিটিসি   




http://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]