ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ ৩ মাঘ ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

যে কারণে আত্মহত্যা করতে চাইলেন মোস্তাফা জব্বার
সময়ের আলো অনলাইন
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৫১ পিএম আপডেট: ০২.১২.২০২১ ৩:১৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 271

আত্মহত্যা করতে মন চায় বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। চেকে বাংলায় ‘ডিসেম্বর’ লেখায় চেকটি ফেরৎ দেওয়া হয়েছে বলে মনের দুঃখে তিনি ফেসবুকে এমন স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে মন্ত্রী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডিতে পোস্ট দিয়ে লেখেন, ‘মন চাইছে আত্মহত‌্যা ক‌রি। এক‌টি চে‌কে আমি ডি‌সেম্বর বাংলায় লি‌খে‌ছি ব‌লে কাউন্টার থে‌কে চেক‌টি ফেরৎ দি‌য়ে‌ছে। কোন দে‌শে আছি?’

মন্ত্রীর এ পোস্ট মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। প্রথম ঘণ্টায়ই তাতে ৩ হাজারের বেশি মানুষ লাইক দেন।




মোনালিসা হোসেন নামের একজন ওই পোস্টের কমেন্ট বক্সে প্রশ্ন করেন, ‘স্যার কি আগে এটা জানতেন না?’ ফারজানা সাকি নামের একজন লেখেন, ‘মন্ত্রীর এই অবস্থা হলে সাধারণ মানুষের কী হবে?’


মাহমুদুল হক জালীস লেখেন, ‘তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাই। স্যার আপনার হাত ধরে আবার আমরা বাংলাভাষাকে সমৃদ্ধ করতে চাই। বাঙালিরা সবাই যেন বাংলা ভাষায় সবকিছু লিখে এবং বলে। স্যার মাতৃভাষার অধিকার ফিরিয়ে আনতে দাবি তুলুন। আপনার সঙ্গে আছি।’

তুহিন আহম্মেদ লেখেন, ‘কিছু ব্যাংক বাংলায় লেখা চেক গ্রহণ করে না, তখন খুবই বিরক্ত লাগে।’ আনোয়ারা সুলতানা নামের অপর একজন লেখেন, ‘স্যার আপনারাই পারেন এগুলো বদলাতে।’

নওয়াব রোজী আরফিন টুকটুকি লেখেন, ‘দুঃখজনক দুটোই,আপনি যা বললেন তা ঠিক না,বেঁচে থাকেন হাজার বছর আমাদের মাঝে। আস্তে আস্তে ঠিক হয়ে যাবে। নীতিমালা তৈরি করে, চাপ দিলেই হয়ে যাবে বাংলায় লিখা চেক গ্রহণ।’

ইসরাত জাহান রাখি কমেন্ট বক্সে লেখেন, ‘স্যার,আপনাকে যদি এতটা নিযার্তন করে, একবার ভাবুন আমাদের মত সাধারণত মানুষকে কতটা সহ্য করতে হয়, আপনার প্রতি অনুরোধ থাকল, এই সব পরিবর্তন করে দিন।’

/জেডও/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]