ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯
ই-পেপার  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

রাজারবাগ পীর দিল্লুরকে রিটে যুক্ত করতে আবেদন
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১, ৬:৪৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 303

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের দায়ের করা ৪৯ ‘গায়েবি’ মামলার বাদীদের খুঁজতে ব্যবসায়ী একরামুল আহসান কাঞ্চনের করা রিটে রাজারবাগ দরবার শরীফের পীর দিল্লুর রহমানসহ চারজনকে যুক্ত করতে একটি সম্পূরক আবেদন করা হয়েছে। সোমবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ আবেদনটি করেন রিটকারী কাঞ্চনের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এমাদুল হক বশির। 

ওই রিটে আগে বিবাদীর সংখ্যা ছিল ৪০ জন। এখন এ চারজনকে বিবাদী করা হলে মোট বিবাদী হবে ৪৪ জন। পীর দিল্লুর রহমান বাদে আবেদনে নতুন বিবাদীদের তালিকায় রয়েছেন- শাকিরুল কবির, ফারুকুর রহমান ও মফিজুল ইসলাম। 

এমাদুল হক বশির বলেন, ‘এ আবেদনটি সোমবার এফিডেভিট করে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার এ বিষয়ে শুনানি হতে পারে।’ 

চারজনকে বিবাদীদের তালিকায় যুক্ত করার কারণ জানতে চাইলে আইনজীবী জানান, এরা সবাই পীরকে মামলায় সহযোগিতা করেছেন। গত ৩১ আগস্টে দেওয়া সিআইডির তদন্ত প্রতিবেদনে বিষয়টি উঠে এসেছে। 

এর আগে গত ১৭ নভেম্বর রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের দায়ের করা ৪৯ মামলার বাদীদের খুঁজতে দেওয়া আদেশের বিষয়ে ৩০ নভেম্বর শুনানির জন্যে ঠিক করেন হাইকোর্ট। 

এদিকে রাজধানীর শান্তিবাগের বাসিন্দা ব্যবসায়ী একরামুল আহসান কাঞ্চনের বিরুদ্ধে রাজারবাগ দরবার শরীফের পীর দিল্লুর সিন্ডিকেটের হয়রানিমূলক ৪৯টি মামলা দায়েরের ঘটনায় হাইকোর্টে সম্প্রতি একটি প্রতিবেদন দিয়েছে সিআইডি। 

সংস্থাটির দাখিল করা প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘একরামুল আহসান কাঞ্চনের তিন ভাই ও এক বোন। ১৯৯৫ সালে তার বাবা ডা. আনোয়ারউল্লাহ মারা যান। রাজারবাগ দরবার শরিফের পেছনে ৩ শতাংশ জমির ওপর তিনতলা পৈতৃক বাড়ি তাদের। বাবার মৃত্যুর পর কাঞ্চনের বড় ভাই আক্তর-ই-কামাল, মা কোমরের নেহার ও বোন ফাতেমা আক্তার পীর দিল্লুর রহমানের মুরিদ হন। কিন্তু রিট আবেদনকারী ও তার অপর ভাই ডা. কামরুল আহসান বাদলকে বিভিন্নভাবে প্ররোচিত করেও ওই পীরের মুরিদ করা যায়নি। 

এরমধ্যেই একরামুল আহসান কাঞ্চনের মা, ভাই ও বোনের কাছ থেকে তাদের পৈতৃক জমির অধিকাংশই পীরের দরবার শরিফের নামে হস্তান্তর করা হয়। আর একরামুল আহসান কাঞ্চন ও তার ভাইয়ের অংশটুকু পীর এবং তার দরবার শরিফের নামে হস্তান্তর করার জন্য পীর দিল্লুর এবং তার অনুসারীরা বিভিন্নভাবে চাপ দেয়। কিন্তু সম্পত্তি হস্তান্তর না করায় পীর দিল্লুর রহমান ও তার অনুসারীদের সঙ্গে একরামুল আহসান কাঞ্চনের শত্রুতা সৃষ্টি হয়। এর কারণেই কাঞ্চনের বিরুদ্ধে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে বিভিন্ন জেলায় হয়রানিমূলক মামলা দায়ের হয়েছে।’  

সিআইডির এই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ‘কাঞ্চনের বিরুদ্ধে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে বিভিন্ন জেলায় সর্বমোট ৪৯টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরমধ্যে জিআর মামলা ২৩টি ও সিআর মামলা ২৬টি। ইতোমধ্যে জিআর ১৫টি মামলা ও সিআর ২০টি মামলায় কাঞ্চন আদালত থেকে খালাস পেয়েছেন। বর্তমানে ১৪টি মামলা আদালতে বিচারাধীন।’ 

পীর দিল্লুর সিন্ডিকেটের হয়রানিমূলক ৪৯টি মামলা থেকে অব্যাহতি ও এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে করা রিটটি বর্তমানে হাইকোর্টে বিচারাধীন।

এফএইচ




http://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]