ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১ ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

প্রেমিকার সরলতার সুযোগে ‘লিভ টুগেদার’, অন্তঃসত্ত্বা হতেই হিংস্র রূপে স্বামী
সময়ের আলো অনলাইন
প্রকাশ: সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৭:৪৮ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 5331

যশোরে স্ত্রী নির্যাতন ও গর্ভের ভ্রূণ নষ্ট করার অভিযোগে স্বামীসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। রবিবার ভুক্তভোগী সুমাইয়া ইয়াসমিন এ মামলা করেন। যশোরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মঞ্জুরুল ইসলাম পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দিয়েছেন।

সুমাইয়া ইয়াসমিন যশোর সদর উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের মেয়ে। সুমাইয়ার স্বামী বিপ্লব হোসেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) সেকশন অফিসার। 

মামলার অন্য আসামিরা হলেন যবিপ্রবির অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান, বিপ্লবের বাবা যশোর সদর উপজেলার হালসা গ্রামের আবু মুছা, বিপ্লবের মা নুর নাহার বেগম, বোন নওশিন শারমিলি ও শহরের পুলিশ লাইন পাওয়ার হাউসপাড়ার ফারুক হাসান হাওলাদার।

মামলার আরজি সূত্রে জানা গেছে, বিপ্লব হোসেন যবিপ্রবির সেকশন অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন। তার সঙ্গে সুরাইয়া ইয়াসমিনের পরিচয় হওয়ার পর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিপ্লব তার সরলতার সুযোগে ভুয়া কাবিননামা তৈরি করে তার সঙ্গে স্বামী-স্ত্রীর মতো বসবাস করতে থাকেন। বিষয়টি জানাজানি হলে বিপ্লব চাকরি বাঁচানোর জন্য ২০১৯ সালের ১১ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর ইয়াসমিনের পরিবারের পক্ষ থেকে সংসারের মালামাল ও ঘর করার জন্য দেড় লাখ টাকা দেওয়া হয়। তারপরও নানা অজুহাতে ইয়াসমিনের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকেন বিপ্লব। এর মধ্যে ইয়াসমিন অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। বিষয়টি মেনে নিতে না পেরে বিপ্লব কৌশলে তাকে ওষুধ খাইয়ে গর্ভের সন্তান নষ্ট করে ফেলেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী আমির হোসেন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরি হারানোর ভয়ে ইয়াসমিনকে বিয়ে করতে বাধ্য হন বিপ্লব। কিন্তু তার সঙ্গে তিনি সংসার করতে চান না। এ কারণে ওষুধ সেবন করিয়ে গর্ভের ভ্রূণ নষ্ট করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নিজেকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে তার সহকর্মী বিপ্লবের পক্ষ নেন। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে পিবিআইকে তদন্তের আদেশ দিয়েছেন।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]