ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ ৩ কার্তিক ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

স্মৃতিতে ড. ইনামুল হক : একটা ক্ষত তৈরি করে দিয়ে গেল
মামুনুর রশীদ
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২১, ৬:৪২ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 70

মঞ্চনাটকের জন্য যে কজন মানুষকে প্রাণ দিয়ে কাজ করতে দেখেছি তাদের একজন আমার বন্ধু ড. ইনামুল হক। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে যাদের সঙ্গে আত্মার সম্পর্ক হয়েছিল তাদের একজন ছিলেন তিনি। গত বছর থেকে করোনার কারণে কাছের অনেক মানুষকে হারিয়েছি। ইনামের চলে যাওয়াটাও দেখতে হলো। তার চলে যাওয়ার খবরটা যখন শুনলাম, হতবাক হওয়ার মতো অবস্থা হয়েছিল। দীর্ঘদিনের বন্ধু ও সহযাত্রী হারানো বেদনা তো ব্যাখ্যা দিয়ে বোঝানো সম্ভব নয়। কেমন জানি একটা ক্ষত তৈরি করে দিয়ে গেল।

তার মৃত্যুর খবরটি শোনার পরই দেখার জন্য ছুটে গিয়েছি। কিন্তু এভাবে দেখা হবে সেটি তো আর চাওয়ার কথা না। আমার প্রাণের বন্ধু আর নেই। শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন না, নাট্যাঙ্গনের গুরু তিনি। যেই উদ্দেশ্যে আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছি সেই চেতনা তিনি হৃদয়ে আজীবন ধারণ করেছেন। দেশের বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সঙ্গে নিজেকে যুক্ত রেখেছেন। নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের শুরু থেকে তিনি যুক্ত ছিলেন। তার হাত ধরে আজকের অনেকে জনপ্রিয় অভিনয় শিল্পী তৈরি হয়েছেন।

আমরা দীর্ঘদিন মঞ্চে একসঙ্গে কাজ করেছি। এরপর যখন টেলিভিশনে নাটক শুরু হলো, তখনও আমার সারথী ছিলেন তিনি। প্রাণ দিয়ে ভালোবেসে কাজ করলে নেশা হয়ে উঠে তা ইনামকে দেখে শেখার ছিল। এমনটা তো সচরাচর দেখা যায় না। তার পরিবারের সবাই নাটকের সঙ্গে যুক্ত। মেয়ে হৃদিও বাবার পথে হাঁটছে। মঞ্চে তার বিচরণও মুগ্ধ করে আমাকে।

ইনামের আরও একটি বড় গুণ ছিল তার হাসিমাখা মুখ। সবার সঙ্গে তার বিনয়ী আচরণ সবার মতো আমাকে মুগ্ধ করেছে।

ড. ইনামুল আমাদের সম্পদ। তরুণদের কাছেও যেন তার আদর্শকে ছড়িয়ে দেওয়া যায় সেই উদ্যোগ নেওয়া উচিত। কারণ তার সৃষ্টি থেকে অনেক শেখার আছে। সেটুকু মর্যাদা তাকে দেওয়া হবে এটা আমার চাওয়া।

লেখক : সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]