ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ ৩ কার্তিক ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

তার মনের দুয়ার ছিল সবার জন্য খোলা
শাহনেওয়াজ
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২১, ৬:৩৬ এএম আপডেট: ১৪.১০.২০২১ ৬:৩৯ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 85

সে অনেক আগের কথা। ঢাকার পলাশীর প্রান্ত ঘেঁষে গড়ে উঠেছিল প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের আবাসিক বাসস্থান। সেখানেই বসবাস করতেন বুয়েটের তৎকালীন শিক্ষক ড. ইনামুল হক। বাংলাদেশ টেলিভিশনে তখন ধারাবাহিক নাটক বেগম মমতাজ হোসেনের লেখা ‘শুকতারা’ প্রচার হচ্ছিল। এই নাটকে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন ইনামুল হক। ইন্টারভিউ নেওয়ার জন্য সেই পলাশীর প্রান্তর ঘেঁষে তার আবাসিক বাসস্থানে যেতে হয়েছিল। সেই প্রথম দেখা। একজন শিক্ষক হয়ে কি স্বাভাবিক অভিনয় করেছিলেন তা ভাবলে অবাক হতে হয়। তিনি যে নাগরিক নাট্যগোষ্ঠীর অন্যতম সদস্য তা আগে জানা ছিল না। কথা প্রসঙ্গে এ তথ্য জানা হয়ে গেল। প্রথম ইন্টারভিউ, প্রথম সাক্ষাতে আমি মুগ্ধ হয়ে যাই। কী অবলীলায় কথা বলে যাচ্ছেন।

ইনামুল হকের সঙ্গে কথা বলার সঙ্গী হয়েছিলেন তার স্ত্রী আরেক অভিনেত্রী লাকী ইনাম। কথা বলতে গিয়ে মাঝেমধ্যে নোয়াখালীর আঞ্চলিকতার প্রচ্ছন্ন প্রভাব পড়ছিল। তাই কৌতূহলবশত জিজ্ঞেস করতে ইচ্ছা হলো, জন্মস্থান কোথায়? লাকী ইনাম পাল্টা প্রশ্ন রেখেছিলেন, কোথায় মনে হয়। আমি কিছুটা ধন্ধে পড়ে যাই। পরে কোনো ভনিতা না করে ইনামুল হক বললেন, নোয়াখালী।

ইনামুল হক জানালেন, অভিনয় করার জন্য যা আগে প্রয়োজন তা হলো উচ্চারণ। যেন কেউ সহজে বুঝতে না পারে নির্দিষ্ট কোন জেলার মানুষ। আর শুদ্ধ উচ্চারণের জন্য নিয়মিত আবৃত্তি রপ্ত করতে হবে। একজন শিক্ষক হয়ে অভিনয়ে কেন- এমন প্রশ্নে তিনি অবলীলায় বলেছিলেন, অভিনয়ের জন্য কোনো পেশার প্রয়োজন হয় না। একজন অভিনেতাকে সবসময় চারপাশের মানুষগুলোর দিকে চোখ রাখতে হয়।

প্রথম ইন্টারভিউতে অনেক কথা বলেছেন, যা এখন মনে হয়, আসলে তিনি ছিলেন বড়মাপের শিল্পী। বাংলাদেশ টেলিভিশনে সাপ্তাহিক নাটকের জন্য রিহার্সাল দেওয়া হতো। রিহার্সালে তিনি অনেক আগেই এসে বসে থাকতেন। একবার দেশের বরেণ্য নাট্যকার ও প্রযোজক আতিকুল হক চৌধুরী তিনতলা সভাকক্ষে ইনামুল হককে একা বসে থাকতে অবাক হয়েছেন। রিহার্সালে সময়মতো আসার ব্যাপারে ইনামুল হক বলেছেন, সময় আমাকে বলে দিচ্ছে আমি কোথায় যাব, কোথায় যাচ্ছি। সময়ের মূল্য দেওয়ার ব্যাপারে বিটিভিতে কেন, মঞ্চের রিহার্সালে ইনামুল হকের উপস্থিতি নিয়ে কেউ অভিযোগ করতে পারেননি। আরেক প্রখ্যাত নাট্যনির্দেশক ও অভিনেতা আলী যাকের ইনামুল হক সম্পর্কে বলেছিলেন, আমাদের নাট্যগোষ্ঠীতে তার মতো এত সিনসিয়ার খুব কম দেখেছি।

ইনামুল হকের সঙ্গে যখনই দেখা হয়েছে তখনই স্বাস্থ্যগত তো বটেই, কর্মস্থলের খোঁজ নিয়েছেন। একসময় তার সঙ্গে প্রায়ই টেলিফোনে কথা হতো। করোনার সময় টেলিফোনে তিনি প্রায় বলতেন, খুব সাবধানে থাকেন। তার কথা এখনও কানে বাজে। এত অল্প সময়ে তিনি মানুষকে খুব আপন করে নিতে পারতেন, কেউ তার সঙ্গে না মিশলে বুঝতে পারবে না। তার মনের দুয়ার ছিল সবার জন্য খোলা।


আরও সংবাদ   বিষয়:  ড. ইনামুল হক  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]