ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ ৩ কার্তিক ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

মানিয়ে নিতে কষ্ট হচ্ছে টাইগারদের
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২১, ৪:৪৯ এএম আপডেট: ১৪.১০.২০২১ ৬:৩৫ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 76

অনুশীলন চলছে নিয়মিত, ফাঁকে ফাঁকে প্রস্তুতি ম্যাচও খেলা হচ্ছে। তারপরও ওমান আর সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবহাওয়া আর উইকেটের সঙ্গে মানিয়ে নিতে কষ্ট হচ্ছে টিম বাংলাদেশের। অর্থাৎ আগেভাগে মধ্যপ্রাচ্যে পাড়ি জমিয়েও ঠিকঠাক মানিয়ে উঠতে পারেনি টাইগাররা। সে কারণেই মূলত শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মঙ্গলবারের প্রস্তুতি ম্যাচটা হেরে গেছে দল। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরুর তিন দিন আগে এমন দাবিই করলেন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

বাংলাদেশ দল এখন আছে আবুধাবিতে। বুধবার সেখানে পুরোদমে অনুশীলন করেছে তারা। কাঁধের ইনজুরির কারণে প্রস্তুতি ম্যাচ দুটোতে না খেলা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও এদিন ঘাম ঝরিয়েছেন সতীর্থদের সঙ্গে। তবে পরিবর্তিত সূচিতে আজ বাংলাদেশ সময় দুপুর ১২টায় শুরু হতে যাওয়া আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে তিনি খেলবেন কি না, সেটা নিশ্চিত নয়। তবে একটা বিষয় নিশ্চিত করেই জানিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি), প্রস্তুতি ম্যাচটা খেলে আজ রাতেই (স্থানীয় সময় রাত ১০টায় রওনা হবে) ওমান ফিরবে টাইগাররা। অর্থাৎ আগামী রোববার স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরুর আগে এক দিন বাড়তি অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে তারা।

কন্ডিশন আর উইকেটের সঙ্গে মানিয়ে নিতে এই দুটো দিনের প্রস্তুতির ওপরই ভরসা রাখতে হচ্ছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ-মুশফিকুর রহিমদের। অথচ আদর্শ প্রস্তুতির জন্য কী দুর্দান্ত সুযোগই না ছিল তাদের। জিম্বাবুয়ে থেকে সিরিজ জিতে ফেরার পর ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সমান পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে টাইগাররা। সিরিজ জয়ের নেশায় সেখানে তারা খেলেছে মন্থর আর অসমান বাউন্সের উইকেট বানিয়ে। প্রস্তুতির বিষয়টা ছিল চরমভাবে উপেক্ষিত। ১০ সেপ্টেম্বর নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষ হওয়ার পর হাতে সময় ছিল এক মাসেরও বেশি। কিন্তু ক্রিকেটারদের বিশ্রাম দেওয়ার ভাবনায় এই সময়েও উপেক্ষিত হয়েছে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি।

ওমানে দিনছয়েক আগে গিয়ে প্রস্তুতি নিলেই সব ঠিক হয়ে যাবে, টিম ম্যানেজমেন্টের এমন অতিআত্মবিশ্বাসী ভাবনাই ক্রিকেটারদের জন্য কষ্টের কারণ হয়ে উঠেছে! এক্ষেত্রে অবশ্য তারা নিজেরাও অনেকাংশে দায়ী। কারণ ক্রিকেটারদের দাবি মেনেই বিশ্রামের ব্যবস্থা রাখা হয়েছিল। অথচ এই ক্রিকেটারদেরই অনেকে আবার বিশ্রাম ভুলে ব্যক্তিগতভাবে নিয়মিত অনুশীলন করেছেন মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। তা হলে পুরো দল কেন নয়? দেশে অন্তত সপ্তাহখানেক আনুষ্ঠানিক অনুশীলন ক্যাম্প করলে কিছু বাড়তি সুবিধাই পেত দল। আর্দশ প্রস্তুতির জন্য স্পোর্টিং উইকেট বানিয়ে খেলা যেত কিছু অনুশীলন ম্যাচ। এই সুবিধা না নেওয়ার কারণেই এখন বেশি কষ্ট করতে হচ্ছে ক্রিকেটারদের।

সেই কষ্টের কথাই শোনা গেল প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর কণ্ঠে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের তথৈবচ পারফরম্যান্স দেখে তিনি বললেন, ‘ওরা দেশে খেলে গেছে, এখানকার উইকেট একটু মন্থর ছিল। সেখানে দ্রুত মানিয়ে নেওয়া তাই কষ্টকর হচ্ছে।’ তবে দ্রুতই ব্যাটসম্যানরা মানিয়ে নিতে পারবেন বলেই বিশ্বাস তার, ‘আরব আমিরাত এবং ওমানের উইকেটগুলো যেভাবে দেখছি, আমাদের ওপেনাররা সময় নিয়ে গুছিয়ে উঠতে পারবে। (বাংলাদেশ) এটা দল হিসেবে খেলতে পারবে।’ সঙ্গে যোগ করলেন, ‘ক্ষুদ্র সংস্করণে সবাইকে ভালো খেলতে হবে এবং নির্দিষ্ট দিনে আপনার সেরাটাই দিতে হবে।... এখানে খামতি থাকা চলবে না। প্রতিটি সেকেন্ড, প্রতিটি মুহূর্ত খুব গুরুত্বপূর্ণ।’
 
প্রধান নির্বাচক অবশ্য প্রস্তুতি ম্যাচের হারটাকেও বড় করে দেখতে চাইছেন না। কেননা সেখানে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঝাঁজ সেই মাত্রায় থাকে না। সব দলই পরীক্ষা-নিরীক্ষার মধ্য দিয়ে যায়। নিজেদের পরিকল্পনাগুলো আলাদাভাবে প্রয়োগের চেষ্টা চালায়। তাই জয়-পরাজয় সেখানে মুখ্য হয়ে উঠে না। নান্নু বিষয়টি ব্যাখ্যা করলেন এভাবে, ‘প্রস্তুতি ম্যাচে উত্থান-পতন থাকবেই। কারণ এই ম্যাচগুলোতে অনেক কিছু পরখ করে দেখা হয়। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং- সবকিছু মিলে সবাইকে মূল্যায়ন করা হয়। সবাই এখানে প্রস্তুত হচ্ছে। সবাই ভালো সুযোগ পেয়েছে, ব্যাক-টু-ব্যাক অনেক ম্যাচ খেলছে।’ সঙ্গে যোগ করলেন, ‘আমরা যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী, বিশ্বকাপ শুরুর আগেই দল ভালো একটা কাঠামোর মধ্যে আসবে।’
প্রধান নির্বাচক এবং টিম ম্যানেজমেন্টের এমন আত্মবিশ্বাসী বুমেরাং না হলেই হয়।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]