ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২ ৮ মাঘ ১৪২৮
ই-পেপার শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

সুস্থতার জন্য মেডিটেশন
ডা. ফারহানা মোবিন
প্রকাশ: বুধবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২১, ৭:২১ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 220

সারা পৃথিবীর আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে এখন অনেক প্রতিযোগিতা। অর্থনীতি, শিক্ষা, প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে সারা পৃথিবীর মানুষ সীমাহীন মানসিক চাপের মধ্যে জীবনযাপন করেন। এ ধরনের পরিস্থিতি থেকে রক্ষার জন্য মানসিক চাপমুক্ত থাকাটা ভীষণ জরুরি। এ জন্য দরকার ধ্যান বা মেডিটেশন।

আমাদের দেশের শহরাঞ্চলের খুব সচেতন কিছু নারী পুরুষ ধ্যান বা মেডিটেশন করেন। তবে তা প্রয়োজনের তুলনায় একেবারেই নগণ্য। আর গ্রামাঞ্চলের নারীরা খুব বেশি বঞ্চিত। মেডিটেশনের নামটাই হয়তো তারা সারা জীবনে শোনেননি। আমাদের সবাইকে ধ্যান বা মেডিটেশনের গুরুত্ব সম্পর্কে বুঝতে হবে। আমরা যদি নারী পুরুষ সবার মধ্যে মেডিটেশন ছড়িয়ে দিতে পারি, তাহলে অনেক মানুষ উপকৃত হবে। ধর্ম-কর্ম মেডিটেশন বা ধ্যান মস্তিষ্কের জন্য ভীষণ উপকারী।
আমাদের মস্তিষ্ক সব সময় কাজ করতেই থাকে। আমরা যখন ঘুমিয়ে থাকি তখনও কাজ করতেই থাকে। মস্তিষ্ক সারা দেহের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে। অর্থাৎ বিরামহীন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে। আমাদের ঘুমানোর সময়, চোখ বন্ধ করে রাখার সময় বা ধ্যান করার সময় মস্তিষ্কের বিশ্রাম হয়। এই বিশ্রামের ফলে মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। তখন সারা দেহের নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা হয়ে ওঠে আরও বেশি শক্তিশালী। প্রতিটি মানুষকেই তার ধর্ম-কর্ম বা মেডিটেশন করা উচিত। ধর্ম মানুষকে দেয় মানসিক প্রশান্তি। বাড়িয়ে দেয় তার কাজ করার স্পৃহা। মানুষ মানসিকভাবে যত বেশি শক্ত হবে, তার কাজ করার শক্তি ততটাই বাড়তে থাকবে।

ধর্মের কিছু কাজ, ধ্যান বা মেডিটেশনের সময় মানুষ চোখ বন্ধ করে রাখে। ফলে চোখ, কপাল, ঘাড়, মাথা, চোখের চারপাশের স্নায়ু ও মাংসপেশির বিশ্রাম হয়। ধ্যানের সময় মস্তিষ্কের প্রতিটি কোষেরও বিশ্রাম হয়। তখন মাথাব্যথা, ঘাড়ব্যথাও কমে যায়। মস্তিষ্কের প্রতিটি প্রান্তে অক্সিজেন পৌঁছে যায়। এই অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত শিরা উপশিরার মাধ্যমে সারা দেহে সঞ্চালিত হয়। এতে দেহের অন্যান্য অঙ্গগুলোরও পুষ্টি হয়। অক্সিজেনসমৃদ্ধ রক্ত দেহের কার্যক্ষমতা বাড়ায়। পরিণামে কমে যায় স্ট্রেস হরমোন বা ডায়াবেটোজেনিক হরমোন।

মেডিটেশন বা ধ্যান মস্তিষ্কের জন্য ভীষণ উপকারী। আমাদের মস্তিষ্ক সব সময় কাজ করতেই থাকে। আমরা যখন ঘুমিয়ে থাকি, তখনও কাজ করে। মস্তিষ্ক সারা দেহের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে। ধ্যান বা মেডিটেশনের সময় আমাদের চোখ, মস্তিষ্কের বিশ্রাম হয়। এতে মস্তিষ্ক হয়ে ওঠে অধিক শক্তিশালী। প্রতিটি মানুষকেই তার ধর্ম-কর্ম, ধ্যান বা মেডিটেশন করা উচিত। 

নারী পুরুষ সব পরিণত বয়সের মানুষের জন্য মেডিটেশন ভীষণ জরুরি। আমাদের উচিত কর্মক্ষমতা বাড়ানোর জন্য নিজেদের ধ্যান করা ও আত্মীয়-স্বজন বা প্রতিবেশী পরিচিতদের ধ্যানে উৎসাহিত করা। মস্তিষ্কের বিশ্রাম হলে, মস্তিষ্কে অক্সিজেনের মাত্রা বেড়ে যায়, তখন মস্তিষ্কে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত, পুরো দেহ সঞ্চালিত হয়। এতে দেহের অন্যান্য অঙ্গগুলোও পুষ্টি পায়। তখন মানুষের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। উচ্চরক্ত চাপও নিয়ন্ত্রণে আসে। চোখের স্নায়ুগুলোর বিশ্রাম হয়।
নিয়মিত ধ্যান নামাজ বা মেডিটেশন করলে, হৃদরোগের ঝুঁকিও কমে। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিত মেডিটেশন বা ধ্যান করেন, ধর্ম-কর্ম করেন, তাদের রক্তে স্ট্রেস হরমোন নিঃসৃত হয় কম। এই স্ট্রেস হরমোন হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোকের ঝুঁকির জন্য দায়ী। স্ট্রেস হরমোন যত কমবে মানুষের ত্বকও সুন্দর থাকবে। ধ্যান মানুষের আত্মবিশ^াস বাড়ায়। তখন মানুষ কোনো আঘাত পেলে তা নিয়ন্ত্রণ করতে শেখে। চোখ বন্ধ করে প্রার্থনা বা ধ্যান করার সময় আমাদের মাথা মুখ, ঘাড়, পিঠের মাংসপেশিরও বিশ্রাম হয়। তখন ঘাড়ব্যথাও কমে যায়। তাই ধর্ম-কর্ম, মেডিটেশন হোক আমাদের নিত্যসঙ্গী।

মেডিটেশনের গুরুত্ব সম্পর্কে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের মহাজাতক সব সময় বলেন, প্রতিটি মানুষকে নিয়মিত মেডিটেশন করা উচিত। ধ্যান মানুষকে তার মন ও চিন্তা চেতনা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে, বাড়িয়ে তোলে আত্মবিশ্বাস। 
প্রতিযোগিতার তীব্র দৌড়ে জয়ী হওয়ার জন্য সবার উচিত নিয়মিত ধ্যান করা। মস্তিষ্ককে আরও বেশি কর্মক্ষম করে তোলা। আর এ জন্য মিডিয়ার ভূমিকা অপরিহার্য। পৃথিবীর উন্নত দেশগুলোর দিকে তাকালেই আমরা দেখতে পাব, সেদেশের নারী পুরুষেরা নিয়মিত হাঁটেন, ধ্যান করেন। ব্যস্ততার মধ্যে কাজ করার সময় বের করাটা অনেক কঠিন। কিন্তু আমরা চেষ্টা করলেই পারব। ধ্যান বা মেডিটেশন হোক আমাদের সবার নিত্যসঙ্গী।

লেখক: জেনারেল প্রাকটিশনার 


আরও সংবাদ   বিষয়:  মেডিটেশন     




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]